Belur Math শ্রীরামকৃষ্ণ সংগ্রহ মন্দির জাদুঘর বেলুড় মঠ

শ্রীরামকৃষ্ণ সংগ্রহ মন্দির জাদুঘর বেলুড় মঠ Belur Math

Belur Math শ্রীরামকৃষ্ণ সংগ্রহ মন্দির’ হল বেলুড় মঠ প্রাঙ্গনে অবস্থিত একটি জাদুঘর। এই জাদুঘরে রামকৃষ্ণ পরমহংস, সারদা দেবী, স্বামী বিবেকানন্দ ও তাঁদের কয়েক জন শিষ্যের ব্যবহৃত দ্রব্যসামগ্রী রক্ষিত আছে।

এগুলির মধ্যে আছে পাশ্চাত্যে বিবেকানন্দের পরিহিত লং কোট, ভগিনী নিবেদিতার টেবিল এবং শ্রীমতী সেভিয়ারের একটি অরগ্যান।

জাদুঘরে রামকৃষ্ণ আন্দোলন ও সমকালীন বাংলার ইতিহাসের কালপঞ্জি রক্ষিত হয়েছে।

Belur Math
belur math

 শ্রীরামকৃষ্ণ সংগ্রহ মন্দিরটি একটি দোতলা ভবন।

এই ভবনের ভিতরে দক্ষিণেশ্বর কালীবাড়ির কাছে অবস্থিত রামকৃষ্ণ পরমহংসের সাধনস্থল ‘পঞ্চবটী’র (পাঁচটি পবিত্র বৃক্ষের উদ্যান) অবিকল প্রতিকৃতি নির্মিত হয়েছে।

গলার ক্যান্সারে আক্রান্ত রামকৃষ্ণ পরমহংস তাঁর শেষ জীবনে যে কালো পাথরবাটিতে করে পায়েস খেতেন, এবং যে বালিশটি ব্যবহার করতেন ।

সেদুটি ও কলকাতায় তিনি যে বাড়িতে শেষ দিনগুলি কাটিয়েছিলেন, সেই বাড়ির আদলে নির্মিত একটি কক্ষে রক্ষিত আছে।

 আরওে পডু়ন:  শ্রী শ্রী ঠাকুর শ্রীরামকৃষ্ণ পরমহংস দেব জীবনী

যে ঘরটিতে রামকৃষ্ণ পরমহংস তাঁর ১২ জন শিষ্যকে সন্ন্যাসীর গৈরিক বস্ত্র দান করেন এবং বিবেকানন্দকে (তখন নরেন্দ্রনাথ) তাঁর সন্ন্যাসী শিষ্যবর্গের নেতা নির্বাচিত করেন, সেই ঘরের একটি মডেলও আছে। এই ঘরে রামকৃষ্ণ পরমহংসের কল্পতরু মূর্তিও রাখা আছে।

এই মূর্তির পায়ে রামকৃষ্ণ পরমহংসের ব্যবহৃত পাদুকাটি পরানো আছে।

দক্ষিণেশ্বরে যে ঘরটিতে রামকৃষ্ণ পরমহংস থাকতেন, সেই ঘরটিও একটি প্রতিরূপ প্রদর্শিত হয়েছে। এই ঘরে তাঁর ব্যবহৃত কাপড় ও অন্যান্য দ্রব্যসামগ্রী আছে।

সেই সঙ্গে রাখা আছে বিবেকানন্দ যে তানপুরাটি বাজিয়ে তাঁর গুরুকে গান শোনাতেন, সেই তানপুরাটি এবং রামকৃষ্ণ পরমহংস কর্তৃক চারকোল দ্বারা অঙ্কিত দুটি ছবি।

১৯১১ সালে সারদা দেবীর মাদ্রাজ (অধুনা চেন্নাই), মাদুরাই ও ব্যাঙ্গালোর (অধুনা বেঙ্গালুরু)তীর্থযাত্রার মডেলগুলিও তাঁর ব্যবহৃত দ্রব্যসামগ্রীর সঙ্গে প্রদর্শিত হয়েছে।

জাদুঘরের মধ্যে শিকাগো আর্ট ইনস্টিটিউশনের একটি মডেলের সামনে স্বামী বিবেকানন্দের একটি বৃহদাকার মূর্তি রয়েছে।

উল্লেখ্য, শিকাগো আর্ট ইনস্টিটিউশনেই ১৮৯৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে আয়োজিত বিশ্ব ধর্ম মহাসভায় বিবেকানন্দ ভাষণ দিয়েছিলেন। এই মডেলের পাশে যাত্রাপথে বিবেকানন্দের সহযাত্রী জামশেদজি টাটার একটি চিঠি রক্ষিত আছে।

এই চিঠিটি জামশেদজি টাটার একটি গুরুত্বপূর্ণ ও বিখ্যাত রচনা। বিবেকানন্দের অনুপ্রেরণাতেই তিনি বেঙ্গালুরুতে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স স্থাপন করেন।

চেন্নাইয়ের  ভিক্টোরিয়া হলের কাঠের সিঁড়ি ও কাঠের পদ্ম এখানে নিয়ে আসা হয়েছে। উল্লেখ্য, এই হলেই বিবেকানন্দ কয়েকটি জনপ্রিয় বক্তৃতা দিয়েছিলেন।

এই মডেলের কাছেই রাখা আছে কুমারী  জোসেফিন ম্যাকলাউড সংক্রান্ত একটি প্রদর্শনী।

কুমারী ম্যাকলাউডের সঙ্গে বিবেকানন্দের সাক্ষাৎ ১৮৯৫ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে হয়েছিল। এরপর তিনি ৪০ বছর ভারতে কাটিয়েছিলেন।

রামকৃষ্ণ আন্দোলনে তিনি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা গ্রহণ করেছিলেন। এই কক্ষে প্যারিসের মণিকার রেনে ল্যালিকের  নির্মিত বিবেকানন্দের একটি স্ফটিকমূর্তি আছে।

বেলুড় মঠের প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট 

2 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here